ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :

  

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলায় ধর্ষণ নাটক সাজিয়ে নিকটাত্মীয়কে ফাঁসাতে গিয়ে মর্জিনা খাতুন অবশেষে নিজেই ফেঁসে গেছেন।

মর্জিনা সদর উপজেলার যাদবপুর গ্রামের ফিরোজের স্ত্রী। তিনি সোমবার রাতে ধর্ষণ করার অভিযোগে সদর হাসপাতালে ভর্তি হন।

মর্জিনা খাতুনের অভিযোগ, তাকে একই গ্রামের মুকুল বিশ্বাসের ছেলে সবুজ ধর্ষণ করেছে। গণমাধ্যমকর্মী তার বক্তব্য রেকর্ড করেন। কিন্তু মঙ্গলবার ঘটনা তদন্ত করতেই বেরিয়ে আসে এই মিথ্যা ও সজানো নাটক।

অভিযোগ উঠেছে যদিবপুর গ্রামের উত্তরপাড়ার বদিয়ার নামে এক ব্যক্তি ঘটনাটি জটিল করতেই ওই নারীকে দিয়ে ধর্ষণ নাটক সাজায়।

মহেশপুর থানার ওসি রাশেদুল আলম বলেন, স্থানীয় একটি কলেজের একাউনটেন্ট সবুজের সঙ্গে ওই নারীর পরিবারের লেনদেন ছিল। তাছাড়া সবুজ তাদের আত্মীয়। লেনদেন বিষয়ে মর্জিনার বাড়িতেই সবুজকে সোমবার মারধর করা হয়। এ ঘটনা আড়াল করতেই মর্জিনাকে দিয়ে অপপ্রচার চালানো হয় ধর্ষণ নাটকের। তারপর একটি কুচক্রী মহল রাতেই সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে মর্জিনাকে। ধর্ষণ ঘটনাটি মিথ্যা হওয়ায় মঙ্গলবার দুই পরিবারকে নিয়ে আপোষের ভিত্তিত্বে মর্জিনাকে বাড়ি পাঠানো হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুনঃ

Facebook comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>