রাবি প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের (আইবিএ) চার শিক্ষার্থীকে স্থানীয়দের মারধরের ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে মতিহার থানা পুলিশ। এ দিকে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায় তিন ঘণ্টাব্যাপী কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, বাংলাদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানীয়দের প্রভাব নেই। অথচ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মত জায়গায় মারধর, ল্যাপটপ কেড়ে নেওয়া, ছিনতাই এমনকি হত্যার ঘটনা ঘটাচ্ছে স্থানীয়রা। আমরা ন্যায় বিচার চাই এবং এসব স্থানীয় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তারা।
তারা আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের কোন নিরাপত্তা নেই। ফলে অনেক  শিক্ষার্থী স্থানীয়দের কাছে নির্যাতিত হয়ে থাকে। আমরা এখানে এসেছি
লেখাপড়া করতে, নির্যাতিত হওয়ার জন্যে নয়। আমাদের দেখভাল করার দায়িত্ব বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশাসনের কিন্তু তারা নির্বিকার।
এদিকে মারধরের ঘটনায় গত রবিবার রাতেই থানায় মামলা করে ভূক্তভোগীরা। এ মামলায় গতকাল সোমবার প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সিরাজুল, উষা ও রবি নামের তিন স্থানীয় যুবককে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান।

ওসি জানান, এ ঘটনায় রবিবার রাতে শিহাব আল কুরাইশ (২০) নামের এক শিক্ষার্থী বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। রবি ও খলিল, খলিলের ছেলে শান্ত, মালের মোড়ের সিরাজুল, উষা, শিপন, জনিসহ অজ্ঞাতনামা ১৫-২০ জনকে আসামী করে নারী নির্যাতন ও হামলার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে

মামলা নং ৫০।

হাফিজুর বলেন, নারীর গায়ে হাত তোলা ও মামলার পরিপ্রেক্ষিতে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। জানতে চাইলে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, রাতেই বিষয়টি শুনে মতিহার থানা পুলিশকে জানানো হয়। পরে মারধরের শিকার শিক্ষার্থীরা থানায় মামলা করে।

প্রসঙ্গত, রবিরার রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর বাসস্ট্যান্ডে দুই বান্ধবীকে ঢাকার বাসে উঠিয়ে দেয়ার জন্য গেলে সেখানে মারধরের শিকার হন আইবিএ’র চার শিক্ষার্থী। তারা হলেন- আইবিএ এর প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী তাসলিমা তানহা শান্তা, তামান্না তারিন প্রাপ্তি, শিহাব আল কুরাইশ।

সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুনঃ

Facebook comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>